EIIN : 118343; College Code : 118343

Meherpur Govt. Mohila College

মেহেরপুর সরকারি মহিলা কলেজ

শিক্ষা নিয়ে গড়ব দেশ শেখ হাসিনার বাংলাদেশ

Latest News :

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী কর্নার

বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও বিজয় অর্জনের ৫০ বছর পূর্তি
সুবর্ণজয়ন্তী কর্নার
Slide1

Slide2

Slide2

Photo Gallery

Sports & Cultural Program; Other Program; Study Tour Picture

All Notice

INstitute Notice, Board Notice & Other Admission Notice

Login

Admin, Teacher, Staff & Student Login Panel

Admission Form

Online Admission Form.

Logo

মেহেরপুর সরকারি মহিলা কলেজে আপনাকে স্বাগতম।

বাংরাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের সাথে মেহেরপুর জেলার ইতিহাস ওতোপ্রোতভাবে জড়িত। এই জেলার তৎকালীন বৈদ্যনাথতলায় (বর্তমানে মুজিবনগর) প্রবাসী সরকার শপথ গ্রহণ করেন। এই ঐতিহাসিক মেহেরপুর জেলার অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মেহেরপুর সরকারি মহিলা কলেজ।

এটি এই অঞ্চলের নারীদের উচ্চশিক্ষার একমাত্র সরকারি প্রতিষ্ঠান। মেহেরপুরের কতিপয় বিদ্যেুাৎসাহী ও সমাজসেবী ব্যক্তি ১৯৮৫ সালে কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন। কলেজটির গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করে সরকার ১৯৯২ সালে এটিকে জাতীয়করণ করেন।  সেই থেকে বাংলাদেশ সরকার ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সার্বিক নির্দেশনায় কলেজটি পরিচালিত হয়ে আসছে। মেহেরপুর শহরের কেন্দ্রস্থলে প্রায় দুই একর জায়গার উপর সবুজ, শ্যামল, শান্ত, স্নিগ্ধ ও নিরিবিলি পরিবেশে এর অবস্থান। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই এটি জ্ঞানের মশাল জ্বালিয়ে তার পথ চলছে। সে আলোয় আলোকিত হয়ে এই অবহেলিত জনপদের মেয়েরা ছড়িয়ে পড়ছে দেশ ও বিদেশের নানা প্রান্তে। দেশাত্মবোধে উদ্বুদ্ধ হয়ে পালন করে যাচ্ছে সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় গুরু দায়িত্ব। বর্তমানে উচ্চ মাধ্যমিক, স্নাতক (পাস) ও স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে এ কলেজে প্রায় ১৮০০ শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছে। একবিংশ শতাব্দীর শিক্ষাব্যবস্থা ও ডিজিটাল বাংলাদেশের সাথে তাল মিলিয়ে এই কলেজটি ও গ্রহণ করেছে বিভিন্ন প্রযুক্তিগত উদ্যোগ। তারই ধারাবাহিতায় কলেজে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন, মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর সমৃদ্ধ ডিজিটাল শ্রেণিকক্ষে ক্লাস গ্রহণ করা হচ্ছে।  

Message

President Message

Lorem Ipsum is a dummy text that is mainly used by the printing and design industry. It is intended to show how the type will look before the end product is available. Lorem Ipsum has been the industry's standard dummy text ever since the 1500:s, when an unknown printer took a galley of type and scrambled it to make a type specimen book. Lorem Ipsum dummy texts was available for many years on adhesive sheets in different sizes and typefaces from a company called Letraset. When computers came along, Aldus included lorem ipsum in its PageMaker publishing software, and you now see it wherever designers, content designers, art directors, user interface developers and web designer are at work. They use it daily when using programs such as Adobe Photoshop, Paint Shop Pro, Dreamweaver, FrontPage, PageMaker, FrameMaker, Illustrator, Flash, Indesign etc.

Lorem Ipsum is a dummy text that is mainly used by the printing and design industry. It is intended to show how the type will look before the end product is available. Lorem Ipsum has been the industry's standard dummy text ever since the 1500:s, when an unknown printer took a galley of type and scrambled it to make a type specimen book. Lorem Ipsum dummy texts was available for many years on adhesive sheets in different sizes and typefaces from a company called Letraset. When computers came along, Aldus included lorem ipsum in its PageMaker publishing software, and you now see it wherever designers, content designers, art directors, user interface developers and web designer are at work. They use it daily when using programs such as Adobe Photoshop, Paint Shop Pro, Dreamweaver, FrontPage, PageMaker, FrameMaker, Illustrator, Flash, Indesign etc.

অধ্যক্ষ মহোদয়ের বাণী

মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত মেহেরপুর জেলায় নারী শিক্ষার সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ মেহেরপুর সরকারি মহিলা কলেজ। নিয়ত পরিবর্তনশীল বিশ্বে টিকে থাকার লক্ষ্যে স্বনির্ভর, দেশপ্রেমিক, মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন মানবসম্পদ গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে ১৯৮৫ সালে এই কলেজটি যাত্রা শুরু করেছিল। সেই থেকে কলেজটি এই জেলায় শিক্ষা বিস্তারে অনন্য ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। 

বর্তমান প্রযুক্তিগত উৎকর্ষ সাধনের যুগে সামিল হয়েছে কলেজটি। উন্নত মানের শিক্ষাদানের লক্ষ্যে সময়োপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। পাঠদানের ক্ষেত্রে পাওয়ার পয়েন্ট স্লাইড তৈরী করে মাল্টিমিডিয়া প্রজক্টরের মাধ্যমে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে শিক্ষক, কর্মচারী ও সকল স্টেকহোল্ডারদের প্রয়োজনীয় তথ্যসমৃদ্ধ পূর্ণাঙ্গ ডাইনামিক ওয়েবসাইট তৈরী করা হয়েছে। আধুনিক ও ডিজিটাল ক্যাম্পাস গঠনের লক্ষ্যে অফিস ও শ্রেণিকক্ষগুলো সাজানো হচ্ছে এবং ক্যাম্পাসটি ফ্রি ওয়াইফাই জোনের আওতায় আনা হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। 

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই এই কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখা এবং  স্নাতক ডিগ্রি কোর্স চালু রয়েছে। বর্তমানে বাংলা ও অর্থনীতি বিষয়ে স্নাতক (সম্মান) কোর্স চালু হয়েছে। তারুণ্যদীপ্ত শিক্ষার্থীদের বিষয়ভিত্তিক প্রয়োজন মেটাতে কলেজে রয়েছে জ্ঞানভান্ডার সমৃদ্ধ একটি কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী। ক্যাম্পাসে অবস্থিত “ছাত্রী নিবাসে” শিক্ষার্থীরা থাকার সুযোগ পাচ্ছে। 

মানসম্মত শিক্ষা প্রদান করাই কলেজটির মূল লক্ষ্য। কলেজের সম্মানিত শিক্ষকবৃন্দ নিরলস প্রচেষ্টার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের কাঙ্খিত পাঠদান করেন।  যার ফলশ্রুতিতে প্রতিবছর কলেজের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শিক্ষার্থী কৃতিত্বপূর্ণ ফল অর্জন করে। কেবল ভাল ফলের মধ্যেই সীমিত নয়  শিক্ষার্থীরা খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায়ও কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীরা রেড ক্রিসেন্ট, বিএনসিসি ও রোভার ইউনিটে যোগদান করে নেতৃত্বের বিকাশ, দেশ সেবা, সৎ ও সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠার সুযোগ পাচ্ছে। 

সর্বোপরি শিক্ষা উন্নয়নে বর্তমান সরকারের গৃহিত নানাবিধ পদক্ষেপে আজ দেশে নবযুগের সূচনা হয়েছে। এই নতুন যাত্রায় যোগ দিতে কলেজটি দৃঢ় পায়ে এগিয়ে চলেছে। আমি আশাবাদী যে, শিক্ষিত ও বিজ্ঞান মনস্ক জাতি গঠনে আগামীতে এই কলেজটি একটি মডেল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিগণিত হবে এবং আলোকিত মানুষ সৃষ্টির অগ্রদূত হিসেবে কাজ করে যাবে ।

Latest Notice

College Notice

Date Heading
Date Heading
Date Heading

2

TODAY

51

YESTERDAY

1145

LAST 7 DAYS

4604

TOTAL

Photo Gallery